অণুগল্প

অসময়ে এলে ! – আফসানা বেলী

হঠাৎ একদিন চোখে পড়ে গেলো, পুরোনো এক তলা সেই বিল্ডিং। ঠিক আগের মতোই আছে। হ্যাঁ ,ঠিক ১২ বছর আগের দেখা সেই বিল্ডিং,গাছ, খেলার মাঠ ,কক্ষ গুলো আগের আদলেই আছে। তবে ঘুনে ধরেছে দরজা আর জানালায়। গ্রিল এ জং পড়েছে। টং এর দোকানটাও আছে, সবই আছে ,শুধু পরিবর্তন হয়েছে মানুষের । আশ্চর্যজনক ব্যাপার হচ্ছে ১২ বছর …

অসময়ে এলে ! – আফসানা বেলী Read More »

তোদের জন্য – অভিষেক সাহা

আজকের ভোরটা অন্য রকম রুকুর কাছে। সূর্যটাকে অন্য দিনের চেয়ে বড় মনে হল ওর । চড়াই-শালিকের ডানাগুলো যেন ঈগলের মত বড় মনে হচ্ছে। ওকে ছুঁয়ে যাওয়া বাতাসে রুম ফ্রেশনারের মিষ্টি গন্ধ। অনেক দিন পর প্রথমবার রুকুর মনে থাকা এক ইচ্ছা পূরণ হবে আজ।                বছরখানেক হল একটা এনজিও জয়েন …

তোদের জন্য – অভিষেক সাহা Read More »

“তবু আনন্দ জাগে” – উজ্জ্বল সামন্ত

বস্তির ছোট্ট মেয়েটি শিউলি (১২ বছর)রাস্তার ফুটপাতে ফুল, মালা, বেলপাতা নিয়ে বিক্রি করে বস্তির সামনের বড় রাস্তায়। শিউলি বাবা হকারি করত ট্রেন এ।  মহামারীর আতঙ্কে ৬ মাস হল সব বন্ধ। ওর বাবা দিন মজুরের কাজে প্রতিদিন সকালে বেরিয়ে যায়। প্রায় দিন খালি হাতে ঘরে ফেরে লকডাউনে সেরকম কাজ কর্ম নেই। মা পাঁচজনের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ …

“তবু আনন্দ জাগে” – উজ্জ্বল সামন্ত Read More »

সেয়ানা – অভিষেক সাহা

আবার বিপত্তি। এবার বেরোনোর সময়। গেটের সামনে দাঁড়িয়ে আছে রকি। ডোভারম্যান। একদৃষ্টিতে চেয়ে আছে সিধুর দিকে। সিধু এমনিতে কুকুরে ভয় পায় না । কিন্তু আজ রকির চাহুনিটা অন্যরকম। মনে হচ্ছে আর এক পা এগোলেই কামড়ে দেবে। ওর মনের মাটিতে হালকা ভূমিকম্প অনুভব করল সিধু।  ” এই অপদার্থ অনি কোথায় গেলি তাড়াতাড়ি আয় তোর রকি দেখ …

সেয়ানা – অভিষেক সাহা Read More »

প্রত্যাবর্তন – নিবেদিতা চক্রবর্তী

সবে শীত পড়তে শুরু করেছে।খুব তাড়াতাড়ি সন্ধে নেমে আসে আজকাল।প্রবালদার জেরক্সের দোকানে দু এক জন এসে দাঁড়িয়েছে।এক অভিজাত পাড়ায় বাড়ির সামনে প্রবালদা জেরক্সের দোকান করেছেন রিটায়ারমেন্টের পর।দোকানে ব্যস্ত থাকেন বলে সময়  তার দিব্যি কেটে যায়। একটা বড় গাড়ি এসে দাঁড়াল দোকানটার সামনে । এক ঝকঝকে স্মার্ট যুবক নামলো গাড়ি থেকে। একটি ফাইল থেকে কিছু কাগজ …

প্রত্যাবর্তন – নিবেদিতা চক্রবর্তী Read More »

বারান্দা ভূত : সুতপা ব‍্যানার্জী( রায়)

অমাবস‍্যার রাত, সমস্ত আকাশ যেন দোয়াতের কালি দিয়ে লেপে দেওয়া হয়েছে। আমি একলাই আছি ঘরে। বাইরে পেঁচার হুতুম ভুতুম ডাক শোনা যাচ্ছে।একটা ভূতের গল্প লিখেছি, সেটাই মন দিয়ে পড়ছিলাম।গল্পটা সত্যিই ভীষন ভয়ংকর হয়ে গেছে। পড়তে পড়তে ভয় ভয় লাগছিল আমার। এমন সময় শুরু হল অঝোর ধারায় বৃষ্টি, তাড়াতাড়ি জানলা বন্ধ করতে গিয়ে দেখলাম বাইরে ঘুটঘুটে অন্ধকার, মনে …

বারান্দা ভূত : সুতপা ব‍্যানার্জী( রায়) Read More »

ইচ্ছেপূরণ : সুতপা ব‍্যানার্জী (রায়)

সাগ্নিক শহরের ছেলে, গ্রাম দ‍্যাখে নি। রবিঠাকুরের বই পড়ে যে পুকুর, বিলের স্বপ্ন সে দ‍্যাখে,ওর বিশ্বাস গ্রামে গেলেই ওসব জিনিস পাওয়া যাবে। সুযোগও এসে গেল, ওর সেজকাকির বাপের বাড়ি বাঁকুড়ার এক গ্রামে, কাকু-কাকিমার সঙ্গে যাওয়ার বায়না ধরল। মায়ের আপত্তি ধোপে টিকল না, বাড়ির গাড়িতেই চলল খুড়তুতো ভাই বিল্ব-র মামাবাড়ি। বড় রাস্তা ছেড়ে যত কাঁচা রাস্তা …

ইচ্ছেপূরণ : সুতপা ব‍্যানার্জী (রায়) Read More »

দেবদূত : নয়ন মালিক

অষ্টমীর সন্ধ্যা। শিয়ালদহ প্লাটফর্ম চত্বর তখন বন্যা স্রোতে ভেসে চলেছে। পূর্ব প্ল্যান মত মনিরুল আর হারুন দু’জনে এগিয়ে এলো প্ল্যাটফর্মের দু দিক থেকে ।       আটটার মেল ট্রেন ঢোকার অপেক্ষা…।       তারপরই আর্তনাদ আর ভয়ের বিভীষিকা প্লাটফর্ম জুড়ে বয়ে যাবে।     মনিরুল আর হারুন নিচু স্বরে আরো একবার  তাদের পরিকল্পনা ঠিক করে …

দেবদূত : নয়ন মালিক Read More »

এক অতি সাধারণ গল্প

অপচয়   : শম্পা সাহা রমেন বাবু খুব হিসেবি মানুষ  তার হিসেবের বুনট এতটাই জমাটি যে একটি পয়সাও এদিক ওদিক হবার উপায় নেই । সারা জীবন স্কুলে চাকরি করেছেন, বাড়িতে এসে মুদি দোকান সামলেছেন ,কিছু কিছু ছাত্র ও পড়িয়েছেন । তার জীবনে অর্থের এতোটুকু অপচয়ও তিনি কখনো করেননি ,এমনকি সময়েরও না । তার উপার্জনের প্রতিটি পয়সার …

এক অতি সাধারণ গল্প Read More »

হাড়িয়া কাণ্ড : বিজন মণ্ডল

“অরে ভান্দুয়া, কুই গিলি ? মেদামরা আইচে , উদের এক গেলাস করি হাড়িয়া দে রে-এ-এ-এ …..”   শিক্ষক দিবসের দিন আদিবাসী পাড়ার শিশুদের একটু শিক্ষায় আগ্রহী করে তোলার জন্য সকাল সকাল দল-বল নিয়ে হাজির হলেন NGO এর প্রধান শীলা দত্ত । বেশ কয়েক বছর হলো সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের বিভিন্ন ভাবে সাহায্য করে আসছেন তাঁরা । …

হাড়িয়া কাণ্ড : বিজন মণ্ডল Read More »