পাখি আমির চচ্চড়ি – ড. ময়ূরী মিত্র

পাখি আমির চচ্চড়ি

 

ক্লাসের সবচেয়ে ছোট আর সবচেয়ে দুষ্টু বাচ্চাটা সেদিন  আসেনি  স্কুলে | মনে আছে , সেবার  বেশ কদিন ধরেই আসছিল না কী কারণে |  শরীরের কোনো একটি অংশ কোনো  এক মুহূর্তের জন্যও স্থির হয় না তার  | নড়ছে তো নড়ছেই | চলছে তো চলছেই   | সদা  দামাল পা হাত | ফলে  আদরে চাপড়ে সবসময় জমাট বেঁধে থাকি আমি আর সে  | সে ও আমি | খেয়াল করবেন ,   দুর্দান্ত দূরন্ত সবসময়  ভালোবাসাকে দানা পাকিয়ে রাখতে পারে  | শিষ্টের চেয়ে এ ক্ষমতা তাদের অনেক বেশি |

এ শিশু যেমন দুষ্ট না হয়ে থাকতে পারে না  আমিও তেমনি তাকে দুষ্টু না দেখে রইতে পারি না |   মানে ব্যাপারটা হলো গিয়ে , সে শিষ্ট হলে আমিই  যেন পড়ব  ফাঁপরে  | তার আমার জটলাটা  ছিল  ঠিক  এইরকম | তার জন্মদিন এসে গেল –তবু এল  না স্কুল |  কী  মনে হলো , একটা  ফোন করে ফেললাম তার মাকে | এপাশ থেকে শুনলাম মা ডাকছেন তাকে —-আয় আয় ম্যাডাম ফোন  করেছেন তোকে |
কথা  শুনতে বলতে কিছুই  পারে না সে  | একটি কানযন্ত্র দিয়ে  কতগুলো বৃহৎ শব্দের আভাস পায় মাত্র | তবু  সেদিন কেন জানি মনে হচ্ছিলো,ফোনের মধ্যে দিয়ে আমার গলা ঠিক পৌঁছেছে তার কানে | সে চিনতে পারছে আমার কথাগুলোকে আর চিনতে পাওয়ামাত্রই  লম্বা লম্বা লাফ দিচ্ছে ফোনের ওপাশে | দেখুন আমি কি উন্মাদিনী ! একবর্ণ বুঝবে না জেনেও মিনিট চারেক তার সাথে  গল্প করে গেলাম | ঠিক যেমন করে  নিত্যিদিনের গল্প বাঁধে কথা বলতে জানা  গেরস্ত দুইজনা |

আমি : কী  রে কবে আসবি ?
সে : এক লাফ ও সামান্য কিচিমিচি  |
আমি  : জন্মদিনেও এলি না তো ?  কাল পাই তোকে  !  দ্যাখ কেমন পেটাই !
সে  : দু লাফ ও বিকট চিল্লামিল্লি |
আমি : স্কুলের সবাই  আজ  মিষ্টি খেল | তোরটা রেখেছি তুলে | কাল এলে পাবি |  নচেৎ সব ফক্কা |

ওগো তাকে স্কুলে আনার জন্য মিছিমিছি কহিলাম আমার  মিঠাইকথন | এবার চড়াই  হেসে ওঠে খিলখিল | লাফের পর লাফ |  ফোনের মধ্যে ধূপধাপ আওয়াজ শুনি |   দামালের লাফ পাহাড় ছাড়ায় | শনশন বহিছে বাতাস | বাতাসই বুঝি  জুড়িছে কথা  | উন্মাদিনী খুঁজে ফেরে  ! বড় আঁটো তার গাথা  |

পরদিন আসবে সে নিশ্চয় |
দু মুঠোয় চকলেট পুরে |

https://www.facebook.com/storyandarticle/posts/1121223648304086

1 thought on “পাখি আমির চচ্চড়ি – ড. ময়ূরী মিত্র”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top